শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৩ পূর্বাহ্ন

কঠোর বিধি নিষেধে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় ঘাট ছিল অনেকটা ফাঁকা

কঠোর বিধি নিষেধে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় ঘাট ছিল অনেকটা ফাঁকা

করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ঘোষিত সপ্তাহ ব্যাপী কঠোর বিধি নিষেদের প্রথম দিন বৃহস্পতিবার রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাট ছিল অনেকটা ফাঁকা। কিছু পন্যবাহী গাড়ি, জরুরী এক-দুটি প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস ছাড়া তেমন কোন যানবাহন চলেনি। তবে দুই-একজনকে মহা বিপাকে পড়ে ঘাট পার হয়।

রাজধানী ঢাকার সাথে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সড়ক যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া নৌপথ। কঠোর বিধি নিষেধের প্রথম দিন বৃহস্পতিবার এই রুটে ফেরি চলাচল ছিল স্বাভাবিক। নদী পাড়ি দিয়ে আসা ফেরিগুলোতে পণ্যবাহী গাড়ি ছাড়া তেমন অন্যকোন গাড়ি দেখা যায়নি। দুই-একজন যাত্রীকে খুবই বিপদে পড়ে পার হতে দেখা যায়।

ঘাট সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সকাল থেকে তেমন কোন মানুষজন পারাপার হয়নি। তবে ঘাট এলাকার কিছু হকারকে (ফল, ডিম বিক্রেতা) ফেরিতে উঠতে দেখা যায়। মাঝে মধ্যে এক-দুটি রোগীবাহি এ্যাম্বুলেন্স পার হতে দেখা যায়।

সরেজমিন দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় দেখা যায়, গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশের কয়েকজন সদস্য মোটরসাইকেলে করে টহল দিচ্ছে। মাস্ক ছাড়া কিছু লোকজন ঘোরাফেরা করতে দেখে তাদেরকে সরিয়ে যার যার ঘরে ফিরে যাওয়ার নির্দেশনা দেন। পাটুরিয়া থেকে আসা প্রতিটি ফেরিতে পণ্যবাহী গাড়ি বোঝাই ছিল। দুই-চারজন যাত্রীও পার হতে দেখা যায়।

বেলা ১১ টার দিকে গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আজিজুল হক খান, সহকারী কমিশনার (ভুমি) রফিকুল ইসলাম, গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর সহ উপজেলা প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের তৎপরাতা দেখা যায়।

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি গ্রামের আরজু মন্ডল পড়াশুনার পাশাপাশি নবীনগর থেকে পোশাক ডিজাইনের কাজ শিখছিলেন। গতকাল বুধবার রাতে মায়ের গুরুতর অসুস্থ্য হওয়ার খবর পেয়ে আজ ভোর ৬টায় রওয়ানা করেন। নবীনগর থেকে পাটুরিয়া ঘাট পর্যন্ত আসতে লেগেছে প্রায় ১ হাজার টাকা।

সকাল ১০ টার দিকে দৌলতদিয়ার ৫ নম্বর ফেরি ঘাটে পাটুরিয়া থেকে আসা রো রো ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর-এ করে ঘাটে নামার পর আলাপকালে আরজু মন্ডল বলেন, বাড়িতে বাবা ছাড়া কেউ নেই। মা খুব অসুস্থ্য। বুধবার রাতেই কুষ্টিয়া ডায়াবেটিক হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এখন আমার মা বড় না কি লকডাউন। প্রয়োজনে পায়ে হেটেই কুস্টিয়া যাব।

ফেরি ঘাট এলাকায় টহলরত গোয়ালন্দ ঘাট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মিজানুর রহমান আকন্দ বলেন, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী ভোর থেকে ডিউটিতে আছি। থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল তায়াবির নেতৃত্বে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছি। ভোরে কিছু অটোরিক্সা দেখেছিলাম। তাদেরকে বুঝিয়ে পাঠিয়ে দিয়েছি। ঘাট এলাকায় এখন পুলিশ, সাংবাদিক ছাড়া কাউকে দেখছি না।

বিআইডব্লিউটিসি টার্মিনাল তত্বাবধায়ক শওকত আলী বলেন, বর্তমানে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে ১৪টি ফেরি চলছে। পণ্যবাহী এবং জরুরী গাড়ি পারাপারে সবকটি ফেরি চালু রাখা হয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2021 BD SUNRISE