গোয়ালন্দে নদী ভাঙ্গন কবলিত অসহায়দের মাঝে খাস জমি বরাদ্দ (ভিডিও)

মইনুল হক মৃধা, রাজবাড়ী।
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:৪৬ PM, ১২ অগাস্ট ২০২০

রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার পদ্নার নদী ভাঙ্গন কবলিত দৌলতদিয়া ও দেবগ্রাম ইউনিয়নের তিন শতাধিক অসহায় ভূমিহীন পরিবারের মাঝে সরকারী ১নং খতিয়ান ভুক্ত খাস জমি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

১২ আগষ্ট রোজ বুধবার গোয়ালন্দ সহকারী কমিশনার (ভূমি) কার্যালয়ে দৌলতদিয়া এবং দেবগ্রামের নদী ভাঙ্গনে বাড়ী ঘর বিলিন হয়ে যাওয়া অসহায় ভূমিহীন তিন শতাধিক পরিবারের মাঝে ৫ শতাংশ করে খাস জমি স্থায়ী বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

প্রথম ধাপে ৫৪ জন পরিবারের মাঝে জমির দলিল হন্তান্তর করা হয়। পযার্য়ক্রমে তালিকা ভুক্ত বাকি পরিবারের মাঝে জমির দলিল দেওয়া হবে।
সরেজমিনে তদন্ত করে প্রকৃত নদী ভাঙ্গন ভূমিহীন পরিবার দেখে তালিকা প্রনায়ন করে তাদের খাস জমি দেয়া হবে।

দেবগ্রাম ইউনিয়নের কাউয়াজানি গ্রামের নদী ভাঙ্গনে নিশ্ব:বৃদ্ধা মোছা. কাজলি বেগম (৬০) বলেন, স্মামীর ভিটা টি গত বছর ভয়াল পদ্মা নদীর ভাঙ্গনে চলে গেছে। নিজের কোন জমি না থাকায় প্রায় এক বছর হাইস্কুলের বারান্ধায় ছেলে মেয়ে নিয়ে জীবন যাপন করছি।

সরকারী খাস জমি পেয়ে আনন্দে চোখের পানি ফেলে। তিনি ঘর না থাকায় সরকারি একটি ঘরের দাবি করেন। দৌলতদিয়া ইউনিয়নের ঢল্ল পাড়া গ্রামের মো. আ. রশিদ শেখ বলেন, নদী
ভাঙ্গনে বাড়িঘর বিলিন হয়ে গেছে।

নিজের কয়েক বিঘা জমি ছিলো চাষাবাদ করে খেতাম, নদী গর্ভে তাও চলে গেছে। এখন নিজের মাথা গোজার ঠাই টুকু নেই। দৌলতদিয়া বাস টার্মিনালের পাশে ছাপড়া ঘর তুলে রয়েছি। নিজের জমি না থাকায় ঘর বাড়ি তুলতে পারছি না। সরকারি খাস জমি পেয়ে এখন কোন রকম ঘরবাড়ি তুলে থাকতে পারবো।

গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আব্দুলাহ আল মামুন বলেন, নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্তো প্রকৃত ভূমিহীনদের তালিকা করে বাড়িঘর উত্তোলনের জন্য সরকারি খাস খতিয়ান থেকে ৫ শতাংশ করে জমি স্থায়ী বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে আরো তালিকা করা হবে। কোন ভুমিহীন বাদ থাকবে না। যাদের ঘর নেই তাদের কেও সরকারী ঘরের ব্যবস্থা করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :