গোয়ালন্দে কলেজ ছাত্র আলামিন ও আলমাছ এর উপর মাদক ব্যবসায়ীদের হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন (ভিডিও)

মইনুল হক মৃধা, রাজবাড়ী
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৪৫ PM, ০৭ জুলাই ২০২০

রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া হেলিপ্যার্ড এ খেলার মাঠে অবৈধ চাঁদার টাকা না দেয়ায় সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের সমাজকর্ম বিভাগের মেধাবী ছাত্র আলামিন ও তার বন্ধু আলমাছকে চাইনিজ কুড়াল ও রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করার ঘটনায় স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী সোহাগ, রাসেল ও তাদের সাথে জরিতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে এলাকাবাসী।

(৭ জুলাই) রোজ মঙ্গলবার গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ এর সামনে দৌলতদিয়া-খুলনা জাতীয় মহা সড়কে সকাল ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ঘন্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে এলাকাবাসীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার শতশত মানুষ উপস্থিত হয়। মানববন্ধন থেকে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অতিত্তর গ্রেপ্তার ও বিচার দাবি করা হয়।

এ সময় হামলাকারীদের বিচার চেয়ে বক্তারা বলেন, সোহাগ ও রাসেল এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, এলাকায় একটি সিন্ডিকেট তৈরি করে তারা দীর্ঘদিন ধরে মাদকের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।

সোহাগের বিরুদ্ধে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় একাধিক মাদক মামলাও রয়েছে। তাই দ্রুততার সাথে সোহাগ গংকে গ্রেপ্তার না করলে এলাকার যুব সমাজ ধ্বংসের মূখে ধাবিত হবে এবং ঘটবে অনাকাংখিত এমন অসংখ্য ঘটনা।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি,তদন্ত) আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর বলেন, গতকাল এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি, পুলিশ অভিযুক্ত সোহাগ গংকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ৪ জুলাই দৌলতদিয়া হেলিপ্যাড মাঠে সকালে ক্রিকেট খেলায় অবৈধ চাঁদার টাকা না দেয়ায় কলেজ ছাত্র আলামিনের সাথে অভিযুক্ত সোহাগ ও রাসেলের উত্তপ্ত বাকবিতন্ডা হয়।

পরবর্তীতে বিকেলে ঐ একই মাঠে ফুটবল খেলার সময় ওৎ পেতে থাকা সোহাগ গং আলামিনের উপর অতর্কিত হামলা চালায় এ সময় সাথে থাকা বন্ধু আলমাছ তাদেরকে বাঁধা দিতে গেলে চাইনিজ কুড়াল ও রামদা দিয়ে দুজনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।

আপনার মতামত লিখুন :